আজ - মঙ্গলবার, ৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি, (শীতকাল), সময় - সকাল ৭:১৯

এই আপদটা বিদায় হবে কবে?

জামসেদুল হক,ঢাকা অফিস: নির্বাচনের পর প্রথম বিএনপির শীর্ষ তিন নেতা প্রকাশ্যে একমঞ্চে দাড়ালেন। কিন্তু কেউ কারো সঙ্গে কথা বললেন না। বরং টিকা টিপ্পনী কেটে একে অন্যের প্রতি ছুঁড়ে দিলেন তীর্যক মন্তব্য। দুই নেতা সরাসরি নেতৃত্বের পরিবর্তন চাইলেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে সুপ্রীম কোর্ট বারে ৩ ঘটনা ঘটে। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভার অনুষ্ঠানে প্রথমেই উপস্থিত হন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। গাড়ী থেকে নেমেই তিনি মহাসচিবকে উদ্দেশ্য করে বলেন,‘ কি হে , তোমাদের মহান নেতা এসেছে?’ কর্মীদের একজন বুঝে ফেলে, তিনি বলেন,‘ উনি পথে আছেন।’ এ সময় ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন,‘শহীদ জিয়ার আদর্শ বাস্তবায়ন করতে হলে আগে এসব অযোগ্যদের দল থেকে জেটিয়ে বিদায় করতে হবে।’ এরপর অনুষ্ঠান স্থলে উপস্থিত হন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন। তিনিও গাড়ি থেকে নামতে নামতে বলেন, ‘কামালের চামচাটা এসেছে।‘ এবারও একজন কর্মী বলেন, ‘এক্ষুনি পৌঁছে যাবেন।‘ এরপর ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন বলেন, ‘প্রধান অতিথি কে? ডঃ কামাল হোসেন?’ ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হবার দুই মিনিটের মধ্যেই অনুষ্ঠানস্থলে আসেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সবার সঙ্গে করমর্দন করেন বিএনপি মহাসচিব। কিন্তু ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন বা ব্যরিস্টার  মওদুদ আহমেদ কেউই মহাসচিবের দিকে ফিরেও তাকালেন না। এসময় ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন এবং ব্যরিস্টার মওদুদ আহমেদ নিজেদের মধ্যে কথাবার্তা শুরু করেন। এক পর্যায়ে ব্যরিস্টার মওদুদ বলেন, ‘এই আপদটা বিদায় হবে কবে?’ এর কিছুক্ষণ পরই আনুষ্ঠানিকভাবে আলোচনাসভা শুরু হয়।

আরো সংবাদ
যশোর জেলা
ফেসবুক পেজ
সর্বাধিক পঠিত