গৃহবধূকে ইউপি চেয়ারম্যানের ধর্ষণ

ফেনী প্রতিনিধি: ফেনীতে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের এক নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মামলা হওয়ার পর তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নির্যাতিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্বজনরা জানান, বুধবার বিকেলে পারিবারিক কলহের জেরে সালিশি বৈঠককে কেন্দ্র করে স্থানীয় এক গৃহবধূকে নিজ কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে ফুলগাজী সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম। নির্যাতিতা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা। এ ঘটনায় অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের শাস্তি দাবি জানিয়েছেন তারা। নির্যাতিতা বলেন, আমার ভাগিনাকে নিয়ে গেছিলাম। আমার ভাগিনাকে সিগারেট আনার কথা বলে বের করে দেয়। পরে আমার সঙ্গে অনেক অসভ্যতা করেছে।সদর হাসপাতাল জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. তাহিরা খাতুন রোজী বলেন, ‘নির্যাতিতা একজন নারী এসেছে। আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য সব কিছু নিয়েছি। পরে আরো কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর জানানো যাবে।’ এ ঘটনায় নির্যাতিতার শাশুড়ি বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।ফুলগাজী থানা উপ-পরিদর্শক মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘ভিকটিমের সঙ্গে কথা বলি। ভিকটিমের কথামত প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। পরীক্ষা করা হলে আরো প্রমাণ পাওয়া যাবে।’ মামলার পর অভিযুক্ত চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে পুলিশ