আজ - সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১১ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি, (বর্ষাকাল), সময় - রাত ১২:০৯

ঝিকরগাছা প্রেমিক আত্মহত্যা প্ররোচনায় প্রেমিকার বিরুদ্ধে মামলা।

যশোরের ঝিকরগাছায় কলেজছাত্র ইলিয়াস হোসেনের (১৯) মৃত্যুর ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা হয়েছে। মামলায় প্রেমিকা লিয়া খাতুন হিরাকে (১৯) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মামলায় লিয়ার বাবা ও মাকেও আসামি করা হয়েছে। আদালতে লিয়া ১৬৪ ধারায় জবাবন্দী দিয়েছেন। গত সোমবার ইলিয়াসের বাবা ঝিকরাগাছা থানায় মামলা করেন।

গত শনিবার গভীর রাতে প্রেমিকার সাথে দেখা করতে গিয়ে রহস্যজনক মৃত্যু শিকার হয় ওই কলেজ ছাত্র। এরপর ঝিকরগাছা থানায় মামলা করেন ওই ছাত্রের বাবা। প্রেমিকা লিয়া খাতুন ছাড়াও তার বাবা আয়নাল হক এবং মা লিজা বেগমকেও মামলায় আসামি করা হয়েছে।

এর আগে ইলিয়াসের পরিবার দাবি করে, প্রেমিকার পরিবারের লোকজন পরিকল্পিতভাবে এই হত্যাকা- ঘটিয়েছে। তবে অভিযুক্ত পরিবারটি দাবি করেছিলো প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় ইলিয়াস ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রেমিকা লিয়া খাতুন হিরাকে (১৯) হেফাজতে নিয়েছিল পুলিশ। সোমবার মামলা রেকর্ড হওয়ার পরে তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।
জানা যায়, ঝিকরগাছার গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের শ্রীচন্দ্রপুর গ্রামের আয়নাল হকের মেয়ে লিয়া খাতুন হিরার সাথে পাশের বাড়ির ফারুক হোসেনের ছেলে ইলিয়াস হোসেনের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। মেয়ের পরিবারের লোকজন বিষয়টি মেনে নিচ্ছিলো না। শনিবার (২৯ এপ্রিল) দিবাগত রাত তিনটার দিকে ইলিয়াস আত্মহত্যা করেছে বলে লিয়া মোবাইল ফোনে কল করে ইলিয়াসের মামাতো ভাই ইয়াসিনকে জানায়। খবর পেয়ে ইয়াসিন ও তার এক বন্ধু লিয়ার বাড়ির জানালার পাশে গিয়ে ইলিয়ামের মরদেহ দেখতে পায়। এরপর ইলিয়াসের বাড়িতে গিয়ে তারা তার মৃত্যুর খবর জানায়।

ইলিয়াস চৌগাছা উপজেলার পাশাপোল আমজামতলা মডেল কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ছিল। লিয়া স্থানীয় গঙ্গানন্দপুর ডিগ্রি কলেজে একই শ্রেণিতে ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় পড়াশোনা করে।

লিয়া খাতুন দাবি করেছিলো শনিবার আনুমানিক রাত আড়াইটার দিকে ইলিয়াস তার সাথে দেখা করতে আসে। ঘরের বাইরে জানালা দিয়ে তারা দুজন কথা বলে। এক পর্যায়ে কিছু দিয়ে বাড়ি (আঘাত) দেয়ার মত জোরে শব্দ হয়। সাথে সাথে ইলিয়াস জানালার পাশে পড়ে যায়। সেসময় ইলিয়াসের বন্ধু (মামাতো ভাই) ইয়াসিনকে ফোন দিলে সে এসে দেখে ইলিয়াস নড়াচড়া করছে না। তখন লিয়া গেট খুলে বাইরে এসে চিৎকার দিলে স্থানীয় লোকজন ইলিয়াকে মৃত অবস্থায় পায়। একই দিনে লিয়া ভিন্ন বক্তব্য দিয়েছেন।

আরেক বক্তব্যে লিয়া জানান, পরিবারের লোকজনের সম্মতি না থাকায় সম্প্রতি তিনি ইলিয়াসের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করে। রাতে ইলিয়াস তাদের বাড়ির জানালায় যায়। সেখানে গিয়ে বলতে থাকে তাকে ছাড়া বাঁচবেন না। একপর্যায়ে লিয়ার গলা থেকে ওড়না টেনে নিয়ে জানালার গ্রিলের সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন ভক্ত জানান, প্রেমের সম্পর্কের কলহের জেরে প্রেমিকার বাড়ির আঙিনা থেকে কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় নিহতের পিতা আত্মহত্যা প্ররোচনার মামলা করেছেন। লিয়া খাতুনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

আরো সংবাদ