আজ - মঙ্গলবার, ২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি, (গ্রীষ্মকাল), সময় - রাত ১০:২৯

‘পুলিশ ব্যর্থ হলে তোমাদের সঙ্গে রোববার মাঠে নামবো’- শামিম ওসমান।

শিমুল মুস্তাফা ঃ নারায়ণগঞ্জে ৯ দফা দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে তাদের কার্যক্রমকে স্বাগত জানিয়েছেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

তিনি আজ শুক্রবার (৩ আগস্ট) বিকেলে নগরীর চাষাঢ়ায় শিক্ষার্থীদের ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম ও মনিটরিং পর্যবেক্ষণে রাজপথে নামেন।

পরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের নিয়ে এক জরুরি পথসভায় শামীম ওসমান তাদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন এবং শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দাবি পূরণের আশ্বাস দিয়ে নানা দিক নির্দেশনা দেন।

শামীম ওসমান শিক্ষার্থীদেরকে আগামী রোববার পর্যন্ত ট্রাফিক কার্যক্রম বন্ধ রেখে ট্রাফিক পুলিশের ওপর দায়িত্ব পালনের সুযোগ দেওয়ার আহবান জানান। তিনি বলেন, পুলিশের ওপর দুইদিনের জন্য দায়িত্ব ছেড়ে দাও।

পুলিশ যদি তোমাদের দাবি, মোতাবেক যথাযথ দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয় তাহলে রোববার থেকে তোমাদের সঙ্গে নিয়ে আমি নিজেই মাঠে নামব।

শামীম ওসমানের আহবানে সাড়া দিয়ে শিক্ষার্থীরা ত্রুটিযুক্ত গাড়ির আটককৃত চাবিগুলো পুলিশের হাতে তুলে দিয়ে ট্রাফিক কার্যক্রম দুইদিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে। জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এ পথসভায় উপস্থিত ছিলেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা এসময় চাষাঢ়া চত্বরে একটি ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণের দাবি জানালে, শামীম ওসমান তাদেরকে আশ্বস্ত করে বলেন, এটা সিটি করপোরেশনের কাজ।

তিনি বলেন, ‘তোমরা আমার ছোট বোন মেয়রের কাছে গিয়ে দাবি জানাও। প্রয়োজনে আমি এ ব্যাপারে মেয়রকে সাধ্যমতো সহযোগিতা করব।’

পথসভা শেষে শামীম ওসমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত পাঁচদিন ধরে শিক্ষার্থীরা যে আন্দোল করে আসছে তা ন্যায়সঙ্গত। নারায়ণগঞ্জের ব্যাপারে শিক্ষার্থীরা যেসব সমস্যা চিহ্নিত করেছে, আগামী রোববার তার তালিকা তিনি দেখবেন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে তিনি সেটা পৌঁছাবেন।

তিনি বলেন, পুলিশ যদি তাদের দাবি মোতাবেক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয় তাহলে দেশের অন্য কোথাও আন্দোলন না হলেও নারায়ণগঞ্জের মানুষের স্বার্থে আমি ছাত্রদের নিয়ে সমস্যা সমাধানে আমি মাঠে নামব। ট্রাফিক ব্যবস্থাপনাকে ঠিক করাসহ সব ধরনের অবৈধ কাজ বন্ধে আমি আপ্রাণ চেষ্টা করব। নারায়ণগঞ্জের শিক্ষিত ছাত্রসমাজের এই ভূমিকার প্রশংসাও করেন শামীম ওসমান।

শামীম ওসমান জানান, শিক্ষার্থীদের এই শক্তিকে তিনি সমাজের মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলে উৎসাহিত করে যথাযথভাবে কাজে লাগাবেন। তবে রাজনৈতিক উদ্দেশে হাসিলের জন্য বহিরাগত একটি গ্রুপ আনেআদলনরত শিক্ষার্থীদের ভেতরে ঢুকে ষড়যন্ত্র করছে। ফেসবুক নির্ভর ওই গ্রুপটি বিভিন্ন ধরণের উস্কানিমূলক ও অশ্লীল ছবি পোস্ট করে শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করে আন্দোলন ভিন্নদিকে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, এই শিক্ষার্থীরা আমার সন্তান। শুধু এমপিগিরিটা আমার কাছে বড় কথা না। ওদেরকেও দেখার দায়িত্ব আমার আছে। তাদেরকে যাতে কেউ ভুল পথে পরিচালিত করতে না পারে আমি সেটা দেখব। শিক্ষার্থীদের পাশে আমি ছিলাম, এখনো আছি এবং থাকব।

পরে সংসদ সদস্য শামীম ওসমান শিক্ষার্থীদের নিয়ে চাষাঢ়ার বিভিন্ন পয়েন্ট ঘুরে পর্যবেক্ষণ করেন।

আরো সংবাদ