আজ - শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি, (বর্ষাকাল), সময় - বিকাল ৫:০৯

পুলিশ সদস্যের লিঙ্গ কাটলো,পরকিয়া প্রেমিকা।

যশোরের এক পুলিশ সদস্যের পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছে তার কথিত প্রেমিকা। মঙ্গলবার বিকেলে নড়াইলে এই ঘটনার পর তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ইমদাদুল ইসলাম যশোর পুলিশ লাইনে কর্মরত। তিনি নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার আমাদা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য বজলুর রহমানের ছেলে

ইমদাদুল ইসলামের দাবি, প্রথম স্ত্রী আফরিন সুলতানা মিম ও একটি ছেলে নিয়ে যশোর শহরের ধর্মতলা এলাকায় ভাড়া বাড়িতে বসবাস করেন। বেশ কিছুদিন আগে তার দ্বিতীয় স্ত্রী নড়াইলের ডলি খাতুনের সাথে তালাক হওয়ার পরও গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে দেখা করার জন্য যেতে বলেন। সেখানে গিয়ে স্টেডিয়াম এলাকার একটি আবাসিক হোটেলে ওঠেন। হোটেলে কথা বলার এক পর্যায় ডলির সাথে বাকবিত-ায় জড়িয়ে পড়েন ইমদাদুল ইসলাম। এরই মধ্যে ভেনেটি ব্যাগ থেকে চাকু বের করে তার পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলেন। রক্তাক্ত অবস্থায় সেখান থেকে যশোরের পলাশ নামে এক পুলিশ সদস্য তাকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এদিকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে এদিন সন্ধ্যায় ইমদাদুলকে ঢাকায় রেফার করেছেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ফাতেমা আক্তার। ইমদাদুল ইসলামে প্রথম স্ত্রী আফরিন সুলতানা মিম বলেছেন, স্বামীকে ভুল বুঝিয়ে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে নড়াইলে ডেকে নিয়ে গেছে তার কথিত প্রেমিকা ডলি। সেখানে নিয়ে পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছে।

যশোর পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, ইমদাদুল ইসলাম যশোর পুলিশ লাইনসে নায়েক পদে চাকরি করেন। কিন্তু বিভিন্ন ধরণের কর্মকাণ্ডে বর্তমানে সাময়িক বরখাস্ত রয়েছেন। এরইমধ্যে নড়াইলে একটি নারীর সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছে ইমদাদুল ইসলাম। ওই নারীকে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে শেষ পর্যন্ত বিয়ে না করায় তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। এজন্য প্রলোভন দেখিয়ে নড়াইলে নিয়ে যায়। আর সেখানেই তার পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছে।

আরো সংবাদ
যশোর জেলা
ফেসবুক পেজ
সর্বাধিক পঠিত