প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ব্যতিক্রমী উদ্দ্যোগ বসুন্দিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানের!

মুনতাসির মামুন : গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আ’লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে যশোরের বসুন্দিয়ায় নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দলীয় প্রতীক নৌকা সে জন্যই দলের সভানেত্রীর জন্মদিনটিও নৌকাবাইচ দিয়ে উদযাপন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন বসুন্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম খান রাসেল।

শুক্রবার বিকেলে এ অনুষ্ঠানে বসুন্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম খান রাসেলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ-উজ-জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও আরবপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম, কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অপূর্ব হাসান, জেলা পরিষ

নৌকা বাইচ

দের ৯ নং ওয়ার্ড সদস্য ইকবাল হোসেন সহ আরো উপস্থিত ছিলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম বাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার হারুন অর রশিদ, আওয়ামী লীগ নেতা হাফিজুর রহমান খান প্রমুখ।

বসুন্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম খান রাসেল বলেন, এদিন ৬টি পুরুষ এবং ৪টি নারী নৌকা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আসে। এর মধ্যে পুরুষ দলে প্রথম স্থান অধিকার করেছে মা মনসা নামক নড়াইল সদর উপজেলার গুয়াখোলার একটি নৌকা। দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে আল্লা ভরসা খুলনার তেরখাদা উপজেলার মোকামপুরে একটি নৌকা এবং তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে নড়াইলের কালিয়ার পেড়লী যুবসংঘের একটি নৌকা। এবং নারী দলের নড়াইল সদরের সুচিত্রার নেতৃত্বে আসা নৌকাটি প্রথম স্থান অধিকার করেছে একই এলাকার হাতিয়াড়া গ্রামের দিপালি মজুমদারের নৌকাটি দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে। প্রধান অতিথি ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ বিজয়িদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।

স্মরণকালের মত নৌকাবাইচ উদযাপিত হলো বলে মন্তব্য করেন স্থানীয়রা। ইতিপূর্বে এত মানুষের সমাগম ও আনন্দঘন অনুষ্ঠান বসুন্দিয়াতে হয়নি। চেয়ারম্যান রাসেলের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এলাকার বয়োবৃদ্ধরাও । গ্রামীণ এ সাংস্কৃতি এখন সভ্যতার চাপে বিলিন প্রায় তবুও একজন রাসেলের জন্য আজ তা দেখা সম্ভব হয়েছে। তারা নেত্রী শেখ হাসিনা ও চেয়ারম্যান রাসেলের দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

আশার চেয়েও বেশি বিস্তার লাভ করেছে উদ্দ্যোগটি। হাজার হাজার মানুষের সমাগমে গমগম করতে থাকে গোটা এলাকা। দেড় কিঃমিঃ ব্যাপ্ত এলাকায় কানায় কানায় মানুষের ঢল নামে। সবাই আনন্দঘন পরিবেশে উপভোগ করেছে অনুষ্ঠানটি।