আজ - মঙ্গলবার, ২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি, (গ্রীষ্মকাল), সময় - ভোর ৫:২৩

ভোটারদের মাঝে টাকা বিতরনের সময় উপজেলা চেয়ারম্যান আটক।

ভোটের চিরচেনা চিত্রে ফিরে এসেছে এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ভোটাদের মাঝে বস্তাভর্তি টাকা বিতরণকালে ধরা পড়েছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ১১ জন।

সোমবার (৬ মে) দিবাগত রাত ১২টার দিকে পাবনার সুজানগর উপজেলা নির্বাচনী এলাকা থেকে তাদের আটক করে র‌্যাব-১২ ক্যাম্পের সদস্যরা।
এলাকাবাসী ও প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়, পাবনার সুজানগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটারদের মাঝে নিয়মবহির্ভূতভাবে টাক বিতরণকালে প্রায় ২৩ লাখ টাকাসহ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিনুজ্জামান শাহীনসহ ১১ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। পাশাপাশি উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিনুজ্জামান শাহীনের ব্যবহৃত একটি গাড়িও জব্দ করা হয়েছে।
তাৎক্ষণিকভাবে আটকদের সবার নাম-পরিচয় জানা যায়নি। তবে আটকদের মধ্যে সুজানগর পৌরসভার ৪ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরও রয়েছেন।

শাহিনুজ্জামান শাহীন এবারের উপজেলা নির্বাচনেও চেয়ারম্যান প্রার্থী। তিনি সুজানগর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। এছাড়া, তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।
র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডার মেজর এহতেশামুল হক খান বলেন, আগামীকাল ৮ মে সুজানগর উপজেলা নির্বাচন উপলক্ষে আমাদের নিয়মিত টহল দল চর ভবানীপুর এলাকায় টহল দিচ্ছিল। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহীনুজ্জামান শাহীনকে দুই ব্যাগ ভর্তি ২২ লাখ ৮২ হাজার ৭০০ টাকা ও ১০ সহযোগীসহ আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসা বাদে জানা গেছে, ভোটারদের নানাভাবে প্রভাবিত করার জন্য টাকাগুলো বিতরণের জন্য রাখা হয়েছিল। আমরা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে জানিয়েছি, তিনি এসে ব্যবস্থা নেবেন। তিনি জানান, আটকদের র‌্যাবের পাবনা অফিসে নেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত জানানো হবে।
পাবনা জেলা নির্বাচন অফিসার ও নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান ঢাকা পোস্টকে বলেন, বিষয়টি আমরা জানতে পেরেছি। বিধি মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরো সংবাদ