আজ - মঙ্গলবার, ৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি, (শীতকাল), সময় - সকাল ৬:৪৭

মেশিন পৌঁছাবে আগামী সপ্তাহে- যশোর সদর হাসপাতালে ৮ টি অত্যাধুনিক মেশিন বরাদ্দ

স্টাফ রিপোর্টার: যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আধুনিক যন্ত্রপাতির সংকট কাটতে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ডিজিটাল এক্সরে, সিটিস্ক্যান মেশিনসহ অতি প্রয়োজনীয় আধুনিক সাতটি মেশিন ও একটি এসি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে মেশিনগুলো নিয়ে আসতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছে মন্ত্রণালয়। আগামী সপ্তাহের মধ্যে এই মেশিনগুলো আনতে প্রক্রিয়া সম্পন্নও করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
জানতে চাইলে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ডিজিটাল ৫শ’ এমএ রেডিওগ্রাফি এক্সরে মেশিন, ডিজিটাল সিটিস্ক্যান মেশিন, রক্তের হিমগ্লোবিন নির্ণয়ের জন্য ডিজিটাল এনালাইজার অটো মেশিন, আল্ট্রা সাউন্ড ডিজিটাল মেশিন, হৃদরোগীদের স্টোক ও হার্টঅ্যাটাক হয়েছে কি না পরীক্ষার জন্য রক্তের লিটরবেঞ্চ মেশিন, মাইক্রোস্কপ মেশিন, রক্তের রাসায়নিক বিভিন্ন পরীক্ষার জন্য ক্যামিস্ট্রি এনালাইজার মেশিন এবং হাসপাতালের ওষুধাগারের জন্য একটি আড়াই টনের এসি বরাদ্দের জন্য চিঠি দেয়া হয়।
গত ১১ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) অধ্যাপক ডা. মোহাম্মাদ আলী খান স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি চিঠি হাসপাতালে এসেছে। তিনি জানান, এসব মেশিন স্থাপনের পর রোগীরা আগামী মে-জুন থেকে সুবিধা পাবে। এই মেশিন গুলো চালু হলে হাসপাতালে পরীক্ষা- নিরীক্ষার ক্ষেত্রেও আধুনিকতার ছোঁয়া পাবে। ফলে হাসপাতালে আগত রোগীদের আর বাইরে থেকে এক্সরে, সিটিস্ক্যানসহ অন্যান্য পরীক্ষা করার দরকার হবে না।
প্রশাসনিক সূত্র মতে, হাসপাতালটি ১শ’ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত হলে যশোরসহ আশপাশের জেলার মানুষ উন্নত চিকিৎসা সেবার আশা নিয়ে এ প্রতিষ্ঠানে ছুটে আসেন। এখানে রোগীরা চিকিৎসকদের ব্যবস্থাপত্র পেলেও আধুনিক মেশিনারিজের পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুবিধা পেত না। ফলে রোগীরা বাধ্য হয়ে হাসপাতালের সামনের বিভিন্ন ক্লিনিক থেকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আনত। বিষয়টি নিয়ে দৈনিক সমাজের কথাসহ বিভিন্ন দৈনিকে একাধিকবার সংবাদ প্রকাশিত হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরে আবেদন করেন। এর প্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদফতর থেকে কর্মকর্তারা হাসপাতাল পরিদর্শনে এসে মেশিন স্থাপনের জন্য জায়গা নির্ধারণ করে যান।
পরে জানুয়ারি মাসের ১১ তারিখে মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় ভান্ডার ও সরবরাহ প্রতিষ্ঠান থেকে এসব মেশিন এবং হাসপাতালের ওষুধাগারের জন্য একটি আড়াই টনের এসি বরাদ্দের জন্য চিঠি দেয়া হয়।
এ ব্যাপারে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, চিঠি হাতে পাওয়ার পরে মেশিনগুলো হাসপাতালে আনার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, মেশিনগুলো আনতে শনিবার ঢাকায় লোক পাঠানো হয়েছে। অফিসিয়াল কাগজপত্র ঠিক করে আগামী সপ্তাহে মেশিনগুলো হাসপাতালে পৌঁছাবে বলে তিনি আশা করছেন।

আরো সংবাদ
যশোর জেলা
ফেসবুক পেজ
সর্বাধিক পঠিত