যশোরে মহিলার লাশ উদ্ধার- পরকীয়ার জের।

নাইম সাব্বির,যশোরঃ আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় যশোর শহরতলীর কিসমত নওয়াপাড়া এলাকায় কল্পনা বেগম (৩২) নামে এক গৃহবধূ খুন হয়েছেন।

নিহতের মেয়ে মেহজাবিন জানান, রুবেল নামে এক ব্যক্তি রেঞ্জ দিয়ে মাথায় আঘাত করে তার মাকে হত্যা করেছে।

স্থানীয়রা জানান, কিসমত নওয়াপাড়ায় রজনীগন্ধা পেট্রোল পাম্পের পাশে আনিসুর রহমানের বাসায় কল্পনা বেগম দুই মেয়েকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন। আজ সন্ধ্যার দিকে একব্যক্তি তাকে খুন করে, বাচ্চাদের মারধর করে।
খবর পেয়ে যশোর কোতয়ালী থানার ওসি অপূর্ব হাসান ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। রাতে মরদেহ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়েছে। নিহতের স্বামী কাজী পলাশ মালয়েশিয়ায় ছিলেন। সেই সময় রুবেলের সঙ্গে কল্পনার প্রেম হয়। প্রেমিকের সঙ্গে মনোমালিন্যের কারণে তিনি খুন হতে পারেন বলে স্থানীয়দের অভিমত।

যোগাযোগ করা হলে উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ফারুক হোসেন জানান, নিহতের প্রথম স্বামী পলাশের সঙ্গে বিচ্ছেদ হওয়ার পর তার আরেকটি বিয়ে হয়। দ্বিতীয় স্বামীর নাম সোহেল। তিনি বাসচালক। তার অনুপস্থিতিতে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে।

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শিকদার সালাহউদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, কল্পনার পূর্বপরিচিত এক যুবক গতকাল রাত ১২টার দিকে তাদের বাসায় আসে। সে ওই রাতে কল্পনার দুই মেয়ে মেহজাবিন ও তৃষাকে ফালুদার সঙ্গে চেতনানাশক খাইয়ে দেয়। আজ বিকেলে মেয়েদের জ্ঞান ফিরলে তারা মায়ের সঙ্গে কথা বলতে চায়।

সেসময় তাদের মারপিট করা হয়। পরে মেয়েরা ঘরের ভেতর মায়ের রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পায়। ততক্ষণে ওই লোকটি পালিয়ে যায়।
এডিশনাল এসপি জানান, কল্পনাকে শ্বাসরোধ ও মাথায় আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।