যশোর পলিটেকনিকে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন – অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা।

ক্যাম্পাস প্রতিবেদকঃ যশোর পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে আজ সকাল সাড়ে নয়টার দিকে মানববন্ধন করেছে পলিটেকনিক শাখা ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগ সভাপতি শাহেদ আলী পলাশের উপর হামলা ও অধ্যক্ষের রুম ভাঙ্গচুরের প্রতিবাদে এ মানববন্ধন করা হয়েছে।

মানববন্ধনে অভিযোগ করা হয় গেল বুধবার বহিরাগত সন্ত্রাসী জুয়েল বাহিনীর হামলায় ছাত্রলীগ সভাপতি পলাশ সহ অন্যান্য নেতা কর্মীরা আহত ও জখম হয় এবং অধ্যক্ষের রুমের জানালা দরজা ভাঙ্গচুর করা হয়। যা সরকারী সম্পদ বিনষ্টের সামিল। অনতিবিলম্বে সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানানো হয় মানববন্ধন থেকে। একই সাথে সন্ত্রাসী জুয়েল বাহিনী গ্রেপ্তার না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস পরিক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন পলিটেকনিক ছাত্রলীগের একাংশের নেতারা। এ সংক্রান্ত একটি লিখিত স্মারকলিপি ও অধ্যক্ষকে প্রেরণ করেছে আন্দোলন কারীরা।

 

এ ব্যাপারে, যশোর পলিটেকনিকের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অনিমেষ পাল, বলেন ছাত্রলীগের সভাপতি গ্রুপের একাংশ আজ সকালে মানববন্ধন করেছে এবং সুষ্টবিচার হওয়ার পর তারা ক্লাসে ফিরবে বলে আমাকে জানিয়েছে। ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা ও বহিরাগত প্রবেশরোধে সর্বোপরি কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন পলিটেকনিক ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি- তারেক হাসান, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক -ইস্কেন্দার পারভেজ, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক- নাসিম রেজা, সাংগঠনিক সম্পাদক- জুয়েল রানা, কপতাক্ষ ছাত্রীনিবাস ছাত্রলীগের সভাপতি- রোকেয়া সুলতানা রুপা, সাধারন সম্পাদক- মেহের আপরোজ রিয়া, সহ-সভাপতি নসিবা জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক- স্বপনা খাতুন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক-নাইমা খাতুন। এ সময় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে সাধারন ছাত্রছাত্রীরাও মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করে।

উল্লেখ্য গত বুধবার মেয়ে ঘটিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের সূত্রপাত ঘটে, পরে বহিরাগত সন্ত্রাসী জুয়েল,বক্কার, কালা আরিফ, মাইমুন,রাহুল, টিপু, সাহেব আলী’রা পলিটেকনিক ছাত্রলীগ সভাপতি সহ তার সমর্থকদের উপর আকস্মাৎ স্বশস্ত্র হামলা চালায়। হামলায় ছাত্রলীগ সভাপতি পলাশ সহ বেশ কয়েকজন আহত ও জখম হয়।