আজ - সোমবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি, (হেমন্তকাল), সময় - রাত ২:৫৫

রংপুরের কিংবদন্তি নেতা সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টুর জীবনবৃত্তান্ত

রংপুর প্রতিনিধি : সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু ১৯৫২ সালের ৭ জুলাই রংপুর নগরীর ইঞ্জিনিয়ারপাড়ায় এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মৃত মহিউদ্দীন আহমেদ ও মাতা মৃত জোবেদা খাতুন। সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু ১৯৬৭ সালে রংপুর জিলা স্কুল থেকে স্টার মার্ক নিয়ে প্রথম বিভাগে মেট্রিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। এরপর ভর্তি হন রংপুর সরকারি কলেজে। সেখান থেকে ১৯৬৯ সালে প্রথম বিভাগে এইচএসসি পাস করেন এবং সেখান থেকেই বিকম পাস করেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে নিজের জীবন বাজি রেখে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর হাত থেকে দেশকে মুক্ত করেন। ’৭১এ ঝন্টুর সহযোদ্ধা মুক্তিযোদ্ধা ও রংপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি সদরুল আলম দুলু জানান, ছাত্রজীবনে তিনি আওয়ামী লীগের ছাত্র রাজনীতির সথে জড়িত ছিলেন।

সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু ’৮০ দশকের শুরু থেকে রাজনীতিতে সক্রিয় হন। তার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে প্রথমে তিনি বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত হন। ধীরে ধীরে রংপুরের মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। ১৯৮৭ সালে দেশে প্রথম উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে সেবারই তিনি রংপুর সদর উপজেলা থেকে প্রথম উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। উপজেলা চেয়ারম্যান থাকাকালীন সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু সে সময়কার রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন।

এর পর ১৯৮৭ সাল থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত রংপুর পৌরসভা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। চেয়ারম্যান থাকাকালীন ১৯৯৬ সালে রংপুর -১ (গঙ্গাচড়া) আসন থেকে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদের সাথে তার বিরোধ দেখা দিলে সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী ও বর্তমানে পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন।

সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু ২০০০ সালে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। এরপর তিনি কেন্দ্রেীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১২ সালের ডিসেম্বরের শেষের দিকে রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে তিনি মেয়র নির্বাচিত হন। এরপর তিনি ২০১৭ সালে আওয়ামী লীগ থেকে মেয়র নির্বাচন করে পরাজিত হন। সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ছিলেন।

তিনি বাংলাদেশে প্রথম ব্যক্তি যিনি একাধারে উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভার চেয়ারম্যান, সংসদ সদস্য ও সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন । ব্যক্তি জীবনে তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। প্রতিষ্ঠা করেছেন স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন সেবামুলক প্রতিষ্ঠান। তার এই বর্ণাঢ্য জীবন দেশের মানুষ আজীবন মনে রাখবে

আরো সংবাদ
যশোর জেলা
ফেসবুক পেজ
সর্বাধিক পঠিত