আজ - মঙ্গলবার, ২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি, (গ্রীষ্মকাল), সময় - রাত ৪:১২

সালমান খাঁনের বাড়িতে একাধিক গুলি বর্ষণ।

থ্রিলার সিনেমার চেয়ে কোনো অংশেই কম নয়। যুক্তরাষ্ট্রে বসে বলিউড তারকা সালমান খানের বাড়িতে গুলিবর্ষণের ছক কষেছেন এক গ্যাংস্টার, চিত্রনাট্য মেনে তাঁর বাসার বাইরে গুলি চালিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করা হয়েছে।
গতকাল রোববার ভোরে বাইকে চেপে এসে সালমান খানের বান্দ্রার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে চার রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে পালিয়েছে দুই দুষ্কৃতকারী। সালমানের বাড়ির দেয়ালে দুটি গুলি লেগেছে।
এ ঘটনা নিয়ে ভারতজুড়ে তুমুল আলোচনার মধ্যে নড়েচড়ে বসেছে মুম্বাই পুলিশ। পুলিশি তদন্তে নতুন মোড় মিলেছে। পুলিশের সূত্রের বরাতে এনডিটিভি লিখেছে, কারাগারে থাকা গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইয়ের ছোট ভাই আনমোল বিষ্ণোই যুক্তরাষ্ট্রে বসে হামলার পরিকল্পনা করেছেন।
যুক্তরাষ্ট্রের আরেক গ্যাংস্টার রোহিত গোদারাকে দায়িত্ব দেন আনমোল। ভারতজুড়ে রোহিতের দলের প্রশিক্ষিত শুটার রয়েছে। সেখান থেকে দুজনকে নির্বাচন করা হয়।
সালমানের বাসার বাইরে সিসিটিভি ক্যামেরায় ধারণকৃত দুটি ভিডিও পুলিশের হাতে এসেছে। সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, গতকাল ভোরে দুই দুষ্কৃতকারী বাইকে চেপে সালমানের বাসার বাইরে গুলি চালিয়ে পালিয়ে গেছে। দুজনের মধ্যে একজনের গায়ে সাদা টি-শার্টের ওপর কালো শার্ট, আর একজনকে লাল টি-শার্টে দেখা গেছে। দুজনের মধ্যে একজনের মাথায় কালো টুপি, আরেকজনের মাথায় সাদা টুপি রয়েছে।
সালমান খানের সঙ্গে গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইয়ের বিবাদ পুরোনো। এর আগেও একাধিকবার সালমান খানকে হত্যার হুমকি দিয়েছে লরেন্সের দল। এই দফায় তাঁর বাড়িতে হামলার ঘটনার দায়ভার এক ফেসবুক পোস্টে স্বীকার করেছেন আনমোল লরেন্স।
ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা সালমানের ফ্ল্যাটে এখন পর্যন্ত দুটি গুলির দাগ চিহ্নিত করেছেন। এর মধ্যে একটি সালমানের বারান্দার দেয়ালে এবং অপরটি তাঁর বাসার বাইরের দেয়ালে। মুম্বাই পুলিশ গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের চার নিরাপত্তারক্ষীর জবানবন্দি নিয়েছে। গুলিবর্ষণের ঘটনার সময় এই চারজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন।
সালমান খান ৪০ বছর ধরে নিজের পরিবারের সঙ্গে ‘গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে’ থাকেন। আটতলা এই আবাসনের নিচতলায় ভাইজান একা থাকেন। আর তাঁর পরিবার এই আবাসনের প্রথম তলায় থাকে।

আরো সংবাদ