২১ জুলাই প্রধানমন্ত্রীকে ঐতিহাসিক গণসংবর্ধনা-জনসমুদ্রে রূপ নেবে বললেন কামাল!

নাঈম সাব্বির ও মুনতাসির মামুন:  ২১ জুলাই  শনিবার  সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঐতিহাসিক গণসংবর্ধনা দেবে আওয়ামী লীগ। এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় গণসংবর্ধনা হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন। ঐতিহাসিক এই আয়োজনে কি বার্তা দেবেন ক্ষমতাসীন দলের সভাপতি- এ নিয়েও চলছে নানা আলোচনা।

কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন বলেছেন, গণভবনে বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতাকর্মীদের জন্য দিক নির্দেশামূলক বক্তব্য দিয়েছেন। এবারে গণসংবর্ধনায় হয়তো তিনি জনগণের উদ্দেশে আগামী জাতীয় নির্বাচন সম্পর্কে বার্তা দেবেন। বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার গণসংবর্ধনাস্থলের প্রস্তুতি পরিদর্শনের সময় তিনি এ কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ, আসানসোলের কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাওয়া সম্মানসূচক ডি-লিট উপাধি সহ পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল প্রকল্প, পাবনার রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প সহ বেশ কয়েকটি ইস্যুতে ওই গণসংবর্ধনা প্রদান করা হচ্ছে বলে জানান এসএম কামাল হোসেন।

নির্বাচন সামনে রেখে আওয়ামী লীগের মহড়া কি না- এমন প্রশ্নের তিনি বলেন, জাতির পক্ষ থেকে, জনগণের পক্ষ থেকে এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  প্রাপ্য। এই প্রাপ্য তাকে দিতেই হবে। কৃতজ্ঞ জাতি অকৃতজ্ঞ হয়ে যাবে, যদি শেখ হাসিনার প্রাপ্য তাকে দেয়া না হয়। তার যে অর্জন, উন্নয়ন তা শুধু বাংলাদেশ নয়, সারা বিশ্বের বিস্ময়। তার প্রতি সম্মান জানাতেই এই সংবর্ধনা।

খানজাহান আলী ২৪/৭ ডটকমকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে এসএম কামাল আরো বলেন, সেদিন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার সংবর্ধনায় জনসমুদ্র তৈরি হবে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখেই সংবর্ধনাস্থল প্রস্তুত করা হয়েছে এবং সেখানে কয়েক লাখ মানুষের জমায়েত হবে তাদের জন্য কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও গ্রহন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সারা দেশের সব শাখাকে আমরা আমন্ত্রণ করিনি। তারপরও স্বতঃস্ফূর্তভাবে নেতা কর্মীরা আসবেন। ঢাকা সিটি এবং ঢাকার আশপাশের এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা আসবেন। এরই মধ্যে চলো চলো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে চলো, চলো চলো ঢাকা চলো- এই স্লোগান নিয়ে এরই মধ্যে ঢাকার আশপাশের সবাই প্রস্তুতি সভা করে ফেলেছেন বলেও জানান তিনি।

সভায় উপস্থিত থাকবেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য,  সভাপতিমন্ডলীর সদস্য , , ছাত্রলীগ, যুবলীগ ,শ্রমীক লীগের নেতা কর্মী সহ ঢাকার আশেপাশের জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং দলীয় সংসদ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবর্ধনা পত্রটি পাঠ করবেন দলটির সাধারন সম্পাদক ওবাইদুল কাদের।