আজ - শুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি, (হেমন্তকাল), সময় - সকাল ৮:০৩

৩০ বছর দেশ সেবার পর গ্রেপ্তার, সুবেদার সানাউল্লাহ এখন অনুপ্রেবেশকারী!


সৌরভ বেগ , মহারাষ্ট্র : ৩০ বছর দেশ সেবা করেও জুটলো অনুপ্রবেশকারীর তকমা! গ্রেফতার করা হলো কারগিল যুদ্ধে দেশের হয়ে লড়াই করা এক প্রাক্তন লেফটেন্যান্ট মহম্মদ সানাউল্লাহকে। তিনি শুধু প্রাক্তণ সেনাকর্তাই নয়, বর্তমানে আসাম পুলিশের সীমান্ত শাখায় এএসআই হিসেবেও যুক্ত ছিলেন। সানাউল্লাহর গ্রেপ্তারিতে দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। বিজেপি শাসিত রাজ্যে অনুপ্রেবেশকারীর তকমা পেতে হয় ৩০ বছর দেশ সেবা করা সেনা বাহিনীর কর্মীদেরও ? উঠছে প্রশ্ন

জানা গেছে, অসম রাজ্যের বেশ কয়েকজন প্রাক্তন ও বর্তমান সেনাকর্মী এবং পুলিশকর্মীর নামে ফরেনার্স ট্রাইব্যুনাল ও ডি-ভোটারের নোটিস এসেছিল। এই বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতির কাছে চিঠি  পাঠিয়েছিলেন অপমানিত সেনাকর্মীরা। যাদের মধ্যে অন্যতম সানাউল্লাহ। চলছিল মামলাও। বুধবার

সানাউল্লাহকে বকো ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে ডেকে তাকে বিদেশি বলে চিহ্নিত করে রায় দেন! শুধু রায়দানই নয়, ইতিমধ্যেই  সানাউল্লাহকে গোয়ালপাড়া জেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। যদিও এই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে সানাউল্লাহর পরিবার।

এদিকে মোহাম্মদ সানাউল্লাহর এক সম্পর্কিত ভাই আজমল হক জানান, সানাউল্লাহর চাকুরিতে যোগদানের কথা উল্লেখ করা হয়েছে ১৯৭৮ সালে। ট্রাইব্যুনালের এনারসির তথ্যে রয়েছে বিষয়টি। অথচ তার জন্ম ১৯৬৭। তাহলে কি করে ১১ বছরের ছেলে সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে পারেন? উল্লেখ্য, সানাউল্লাহ  সেনাবাহিনীতে যোগ দেন ১৯৮৭ সালে। রাষ্ট্রপতি পুরস্কারও পেয়েছিলেন সানাউল্লাহ। ৩০ বছর সেনাবাহিনীতে থাকার পরে ২০১৭ সালে অবসর নেন তিনি। এরপর এএসআই হিসেবে সীমান্ত শাখায় যোগ দেন। তার সব তথ্য প্রমাণই জমা দেওয়া হয়েছিল আদালতে। কিন্তু তার পরেও একজন প্রাক্তন সেনাকর্মীকে এভাবে গ্রেপ্তার করায় নিন্দার ঝড় উঠেছে সর্বত্র।

আরো সংবাদ