খোলাডাঙ্গায় হাফেজ জখমের ঘটনায় ৪ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা

ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের ব্যবসা নিয়ে বিরোধের জেরে যশোর শহরতলীর খোলাডাঙ্গায় প্রতিপক্ষের হামলায় হাফিজুর রহমান হাফেজ (৩৫) জখম হওয়ার ঘটনায় মামলা হয়েছে।

আহত হাফেজের বোন রোকসানা বেগম (৪০) কোতয়ালি থানায় ৪ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা করেছেন। আসামিরা হলো, খোলাডাঙ্গা গ্রামের দর্জি কামালের ছেলে ইমন (১৮), মৃত মফিজুর রহমানের ছেলে আশরাফুল ইসলাম আশা (৩২), লুৎফর রহমানের ছেলে কালো জনি (৩৪) এবং রায়হান (২৫)।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, হাফিজুর রহমান হাফেজ খড়কী-খোলাডাঙ্গা এলাকার বিভিন্ন বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে ওয়াইফাই সংযোগের ব্যবসা করেন। এই নিয়ে আসামিদের সাথে তার বিরোধ তৈরি হয়। তারা হাফেজকে মারপিটসহ ক্ষতি করার ষড়যন্ত্র করতে থাকে। গত ১৪ জানুয়ারি বিকেলে খড়কির রবিউলের বাড়ির সামনে ইন্টারনেট সংযোগের কাজের জন্য অবস্থান করার সময় আসামিরা এক যোগে সেখানে যায়। এবং তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে আসামিরা তাকে ছুরিকাঘাত করে। এরপর লোহার রড, বাঁশের লাঠি দিয়ে মারপিটে জখম করে। তার পকেটে থাকা ব্যবসায়ীক ৩০ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। ইন্টারনেট সংযোগের টেস্ট মেশিন ভাংচুর করে ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি করে। সেসময় আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আসামিরা ফের হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে হাফেজকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, হাফেজের বর্তমান অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় সংকটাপন্ন অবস্থায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, হাফেজের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা ও সসন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিভিন্ন অভিযোগ আছে।