আজ - শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি, (বর্ষাকাল), সময় - বিকাল ৪:৩৪

প্রকাশ্যে দুই ভিক্ষুকের প্রচন্ড মারামারি।

ভিক্ষুক মুক্ত কেশবপুরে দুই ভিক্ষুকের মারামারিতে ফিরোজ হোসেন নামে একজন আহত হয়েছেন। কেশবপুর পৌর শহরে ভিক্ষা করতে এসে দুই ভিক্ষুকের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বুধবার বেলা ১১টায় এ ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, রহিমা নামে এক ভিক্ষুক প্রতিদিনের মত কেশবপুর মাইকেল মধুসূদন সড়কে ডাক্তার-খানা মসজিদের সামনে ভিক্ষা করতে থাকেন। চুকনগর পশুহাটের পাশে মৃত মাগফুর রহমান এর ছেলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক ফিরোজ (৪০) হ্যান্ড মাইক নিয়ে ভিক্ষা করতে করতে কেশবপুর ডাক্তার খানা জামে মসজিদের সামনে কাঁচা বাজার মোড়ে এসে ভিক্ষা করতে থাকেন। একই জায়গায় দুই ভিক্ষুক হওয়ায় প্রথম ভিক্ষুক রহিমা খাতুন তাকে সেখান থেকে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। কিন্তু ভিক্ষুক ফিরোজ সেখান থেকে যাওয়ার জন্য রাজি না হওয়ায় দুইজনের ভিতরে বাক বিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে প্রথম ভিক্ষুক রহিমা ইট দিয়ে ফিরোজের মাথায় আঘাত করলে রক্তাক্ত জখম হয়। স্থানীয় লোকজন ভিক্ষুক ফিরোজকে সাবেক পৌর কাউন্সিলর ডাক্তার আনিস এর কাছে নিয়ে গেলে মাথায় সেলাই দিয়ে ফ্রি চিকিৎসা সেবা দেয়। এ ঘটনায় প্রথম ভিক্ষুক রহিমা ভয় পেয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যান। ভিক্ষুক ফিরোজের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি ভিক্ষুক রহিমার বিরুদ্ধে থানায় কেস করব।

উল্লেখ্য. বিগত জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেকের নির্দেশে কেশবপুর কে ভিক্ষুক মুক্ত ঘোষণা করে উপজেলা প্রশাসন। তাহলে এই ভিক্ষুক কারা এই নিয়ে প্রশ্ন জনমনে। তবে বাজারের এক ক্রেতা বলেন, কেশবপুর বাজারে আসার মত নেই। যেদিকে তাকাই সেদিকে ভিক্ষুক আর ভিক্ষুক। অপর এক ব্যবসায়ী বলেন, দোকান খুলে বসতেই একের পর এক ভিক্ষুক আসতে থাকে। আর এইভাবে সারাদিন চলে। আর শুক্রবারের দিন মহিলা ভিক্ষুক দলে দলে এসে থাকে।

আরো সংবাদ
যশোর জেলা
ফেসবুক পেজ
সর্বাধিক পঠিত