আজ - সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১১ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি, (বর্ষাকাল), সময় - রাত ১২:৩৪

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন গ্রেফতার

সরকারি তহবিল অপব্যবহারের অভিযোগে মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দল বারসাতুর সভাপতি মুহিউদ্দিন ইয়াসিনকে গ্রেফতার করেছে দেশটির দুর্নীতি দমন কমিশন (এমএসিসি)। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) এমএসিসি এক বিবৃতিতে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে কোভিড-১৯ মহামারির ধাক্কা থেকে দেশের অর্থনীতি পুনরুদ্ধার পদক্ষেপের অংশ হিসেবে বুমিপুতেরা ঠিকাদারদের ক্ষমতায়নের বিষয়ে সরকারি অর্থনৈতিক কর্মসূচির (জন উইবাওয়া) তহবিলের অপব্যবহারের বিষয়ে সাক্ষ্য দিতে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা ১৮ মিনিটে এমএসিসি সদর দফতরে পৌঁছান মুহিউদ্দিন। সে সময় মুহিউদ্দিনের সঙ্গে তার আইনজীবী কে কুমারেন্দ্রানও ছিলেন। সেখানে কয়েক ঘন্টা ধরে জবানবন্দি দেয়ার পর দুপুর ১টার দিকে মুহিউদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়।

এমএসিসি জানিয়েছে, শুক্রবার (১০ মার্চ) কুয়ালালামপুর আদালতে পাগোহের এমপি মুহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার জন্য অ্যাটর্নি জেনারেলের চেম্বার থেকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এমএসিসির বিবৃতিতে বলা হয়, এমএসিসি আইন-২০০৯ এর ২৩ ধারা এবং মানি লন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন বিরোধী আইন-২০০১ এর ৪(১) বি ধারায় মুহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি অভিযোগ আনা হতে পারে।

 

এদিকে, বিরোধী দল বারসাতুর ব্যাংক হিসাব জব্দ করতে এমএসিসির সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আইনি আবেদন জানিয়েছে দলটি। মেসার্স চেতন জেথওয়ানি অ্যান্ড কোম্পানির মাধ্যমে দলটি বুধবার (৮ মার্চ) হাইকোর্টে বিচারবিভাগীয় পর্যালোচনার আবেদন করে। দলটি দাবি করেছে, আইনপ্রয়োগকারী এজেন্সির এই সিদ্ধান্ত একটি অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে করা হয়েছে।

বারাসাতুর আবেদনে এমএসিসির প্রধান কমিশনার আজম বাকি, তদন্ত বিভাগের জ্যেষ্ঠ পরিচালক হিশামুদ্দিন হাশিম, অ্যান্টি মানি লন্ডারিং বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ জামরি জয়নুল আবিদিন, অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক খায়রুল জাইমি দাউদসহ সরকারের আরও ১৩ জন কর্মকর্তাকে বিবাদী করা হয়।

প্রসঙ্গত, দেশটির সরকারি তহবিলের অপব্যবহারের অভিযোগে চলমান তদন্তের অংশ হিসেবে মাস খানেক আগে মানি লন্ডারিং, সন্ত্রাসে অর্থায়ন ও বেআইনি কার্যকলাপে অর্থায়ন আইনের আওতায় বিরোধী দল বারসাতুর অ্যাকাউন্ট জব্দ করে এমএসিসি।

এর আগে তাসেক গেলুগরের এমপি ওয়ান সাইফুল ওয়ান জানের বিরুদ্ধে ২০২২ সালে একটি বেসরকারি সংস্থাকে ২৩২ মিলিয়ন রিঙ্গিতের সেন্ট্রাল স্পাইন রোড সরকারি চুক্তি অর্জনে সহায়তা করার জন্য ৬ দশমিক ৯ মিলিয়ন রিঙ্গিত ঘুষ চাওয়া এবং গ্রহণের অভিযোগ আনা হয়েছিল। সেগামবুত বারসাতু উপপ্রধান অ্যাডাম রাদলান আদম মুহাম্মদ হলেন প্রথম দুজন ব্যক্তি যিনি (জনা উইবাওয়ার) সঙ্গে জড়িত দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত হন। যা প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে মুহিউদ্দিন ইয়াসিন প্রবর্তন করেছিলেন।

আরো সংবাদ