আজ - বুধবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১লা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২রা রমজান, ১৪৪২ হিজরি, (গ্রীষ্মকাল), সময় - সকাল ৭:২৭

‘কাজে গেছিলাম, আইসা দেখি আমার মেয়ে নাই’

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় গলায় ওড়না পেঁচিয়ে সপ্তম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। আজ রবিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার ভোজেশ্বর ইউনিয়নের মশুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত স্কুলছাত্রী পার্শ্ববর্তী ফতেজঙ্গপুর গ্রামের লিটন মুন্সীর মেয়ে। তারা মশুরা গ্রামের একটি বাসায় ভাড়া থাকে। 

স্কুলছাত্রীর মা বলেন, আমরা দুজন (স্বামীসহ) প্রতিদিনের মতো আজও সকাল সাড়ে ৯টার সময় কাজে যাই। মেয়ের আত্মহত্যার খবর পেয়ে ছুটে আসি। এসে দেখে আমার মেয়ে আর নেই। আমার মেয়েকে ছাড়া আমি বাঁচব না।

kalerkantho

জানা যায়, স্কুলছাত্রী তার প্রতিবন্ধী ছোটভাইকে নিয়ে বাড়িতে ছিলেন। হঠাৎ তার ভাইয়ের অস্বাভাবিক চিৎকারে আশে পাশের মানুষ ছুটে আসে। এ সময় তারা স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত দেহ দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে ভোজেশ্বর ফাঁড়ি পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে। 

নড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, প্রাথমিক ভাবে এটি আত্মহত্যা বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে কি কারণে আত্মহত্যা করেছে এ ব্যাপারে স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

আরো সংবাদ
যশোর জেলা
ফেসবুক পেজ
সর্বাধিক পঠিত